রবিবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০
Home ঢাকার চাকা খোলা পাতা শোকাবহ আগস্টঃ বঙ্গবন্ধু অমর, রয়েছেন কোটি হৃদয়ে

শোকাবহ আগস্টঃ বঙ্গবন্ধু অমর, রয়েছেন কোটি হৃদয়ে

সাজ্জাদুর রহমানঃ বুধবার, ১৭ মার্চ ১৯২০, গোপালঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় এক নক্ষত্রের আগমন। বাবা শেখ লুৎফর রহমান ও মা সায়েরা খাতুনের ঘর আলো করে এলেন সেই উজ্জ্বল নক্ষত্র। আদরের খোকা ছোটবেলা থেকে ছিলেন শান্তশিষ্ট ও মানবদরদি। হ্যাঁ বলছি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কথা।

মুজিব অর্থ উত্তরদাতা। যা আরবি ভাষার শব্দ থেকে উৎপত্তি। নানা শেখ আব্দুল মজিদ ভালোবেসে নাম রাখেন মুজিব। ছোটবেলায় বাবার গলা ধরে না ঘুমালে তাঁর রাতে ঘুম আসত না। যার ডাক নাম ছিলো খোকা।

শৈশবকালে মা-বাবার আদরের খোকা পরবর্তীকালে ছাত্র ও যুবকের কাছে ভাইজান এবং গ্রামবাসীর কাছে মিয়া ভাই নামে পরিচিতি পেয়ে যান।

ছোটবেলা থেকে খোকা মানবসেবায় অটল ছিলেন। একদিন প্রচণ্ড শীতে স্কুল থেকে ফেরার পথে খোকা দেখতে পান একটি গাছের নিচে বসে একজন ভিক্ষা করছেন। বুড়ো মানুষ শীতে ঠকঠক করে কাঁপছেন। খোকা নিজের গায়ের চাদর বুড়োর গায়ে জড়িয়ে দিলেন।

মানুষের প্রতি খোকার আবেগ-অনুভূতি দেখে বাবা-মা কখনোই কোনো কাজে বাধা দেননি। তারা জানতেন খোকা অন্য ছেলেদের থেকে আলাদা। মানুষের কল্যাণে খোকা সর্বদা অবিচল। ছোটবেলা থেকে স্বেচ্ছাসেবী কাজে নিযুক্ত ছিলেন। তার গৃহ শিক্ষক হামিদ মাস্টারের নেতৃত্বে একটি ‘মুসলিম সেবা সমিতি’ গঠন করা হয়েছিল। সমিতির অন্যতম সংগঠক ও একনিষ্ঠ কর্মী ছিলেন শেখ মুজিব। সমিতি গরিব ছেলেদের সাহায্য করত। প্রতি রবিবার থলি নিয়ে বাড়ি বাড়ি ঘুরে মুষ্টি চাল উঠিয়ে আনা হতো এবং সেই চাল বিক্রি করে গরিব ছেলেদের পড়াশোনার খরচ চালানো হতো।

১৯৩৯ সালে গোপালগঞ্জ মিশনারি স্কুলে গিয়েছিলেন বাংলার তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক ও মন্ত্রী হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী। সেখানে বঙ্গবন্ধু বলিষ্ঠ কণ্ঠে স্কুলের সব দুর্দশার চিত্র তাদের কাছে বর্ণনা করেন। তার কথাগুলো ভীষণ মনোযোগ দিয়ে শোনেন প্রধানমন্ত্রী এবং মন্ত্রী।

মিশনারি স্কুল থেকে ১৯৪২ সালে ম্যাট্রিক পাস করেন শেখ মুজিব। পরে ভর্তি হন কলকাতা ইসলামিয়া কলেজে। ১৯৪৯ সালে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের আন্দোলনে সংহতি প্রকাশ করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বঙ্গবন্ধুকে বহিষ্কার করা হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ছাত্র ছিলেন তিনি।

১৯৪৯ সালের ২৩ জুন পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ প্রতিষ্ঠা করা হয়। সে সময় সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক হন শেখ মুজিব। পাকিস্তানের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ আলী জিন্নাহ ১৯৪৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমাবর্তনে বলেছিলেন, ‘উর্দু হবে পাকিস্তানের একমাত্র রাষ্ট্রভাষা’। সুউচ্চ কণ্ঠে ছাত্র-ছাত্রীরা না না বলে সেই কথার বিরোধিতা করেন। সেই থেকে শুরু হয় বাংলা ভাষাকে রক্ষা করার সংগ্রাম। ১৯৫২ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি ভাষা আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ায় গ্রেফতার হন বঙ্গবন্ধু।

জালিম পাকিস্তানের দৃষ্টিতে বঙ্গবন্ধু একটাই অপরাধ করেছিলেন, তা হলো- এদেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন। শোষণ ও নিদারুণ বৈষম্যের মুক্তি। ধর্মের ভিত্তিতে ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান সৃষ্টির পর, বাঙালি সত্তাধিকারের দাবি তোলায় কারাগার হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর একমাত্র স্থায়ী ঠিকানা। প্রতিটি অন্যায়ের বিরুদ্ধে উপযুক্ত উত্তর দিতে গিয়ে মুজিব তাঁর ক্ষণস্থায়ী জীবনের প্রায় ১৩টি বছর কারাগারে কাটিয়েছেন। সময়ের হিসাবে তা চার হাজারের অধিক দিন। স্কুলছাত্র থাকাবস্থায় ১৯৩৮ সালে সর্বপ্রথম কারাগারে যান বঙ্গবন্ধু। অতঃপর কারাগারের শিকলে বারবার বন্দি হওয়ার জ্বালা থেকে চিরস্থায়ী মুক্তি মেলে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর। সাফল্যের পথ মসৃণ নয়, জীবন আঘাতের বিনিময় ছাড়া কিছু দিতে চায় না। ফলে একটি সুদীর্ঘ সময় স্ত্রী শেখ ফজিলাতুন্নেছা রেণুকে একহাতে ঘর সংসার সামলাতে  হয়েছে। কারণ গোপালগঞ্জ ছেড়ে বেগম মুজিব ছেলে-মেয়ে নিয়ে ষাটের দশকে সেই সময়ের ধানমন্ডি ৩২ নম্বর রোডে অসমাপ্ত ও নির্মাণাধীন ৬৭৭ নম্বর বাড়িতে এসে ওঠেন।

১৯৬৬ সালের ১৮ মার্চ আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে ঐতিহাসিক ৬ দফা গৃহীত হয়। ওই বছরের ২৩ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব আনুষ্ঠানিকভাবে ৬ দফা ঘোষণা করেন। বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ ৬ দফা আন্দোলনে দেশব্যাপী উত্তাল হয়ে পড়ে।

১৯৬৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে (সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) এক জনসভার মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহসভাপতি (ভিপি) তোফায়েল আহমেদ শেখ মুজিবকে ‘বঙ্গবন্ধু’ উপাধি দেন। ওই বছরের ৫ ডিসেম্বর পূর্ব পাকিস্তানকে ‘বাংলাদেশ’ নামে ভূষিত করেন বঙ্গবন্ধু।

১৯৭১ সালের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে বিশাল জনসভা করেন বঙ্গবন্ধু। সে সময় সারাদেশ থেকে ছুটে এসেছিলো সব শ্রেণি-পেশার মানুষ।

১৮ মিনিটের ভাষণে কোটি বাঙালিকে রণক্ষেত্রে নামার উৎসাহ দেন তিনি। জ্বালাময়ী সেই ভাষণ আজও হৃদয়ে ধারণ করছে বাঙালি।

দুঃখজনকভাবে ৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তান কারাগারে বন্দি ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব। তখনই নিরস্ত্র, নিরীহ বাঙালির ওপর বর্বরতা চালায় পাক-হানাদাররা। তার সাহস প্রদানেই নির্ভীক বাঙালি প্রতিরোধ গড়ে তোলে। ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোলে বাংলার সূর্য সন্তানেরা।

১৬ ডিসেম্বর বাংলার আকাশে ওড়ে লাল-সবুজের পতাকা। অর্জিত হয় স্বাধীন ভূখণ্ড, বাংলাদেশ। ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি স্বদেশে ফিরে আসেন বঙ্গবন্ধু। স্বপ্ন দেখেন সোনার বাংলাকে সাজাবেন মনের মতো করে। বিশ্বের দরবারে এক অনন্য মর্যাদায় থাকবে সোনার বাংলাদেশ।

আগস্ট গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের অষ্টম মাস। রোমান সম্রাট আগস্টাসের সম্মানে এই মাসের নামকরণ আগস্ট করা হলেও বাঙালির কাছে এক নিষ্ঠুরতম বেদনাহত আগস্ট মাস। আগস্ট মাস মহৎপ্রাণ মানুষদের প্রস্থানের মাস। এ মাস দুঃখের মাস, বিচ্ছেদের মাস, ইতিহাসের নেতিবাচক পট পরিবর্তনের মাস। এ মাসে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট, দিনটি ছিলো শুক্রবার, পবিত্র দিন। এই পবিত্র দিনে বাংলাদেশের গায়ে দাগ কাটে অপবিত্রতা। স্বাধীন ভূখণ্ডে এই দিনে ঘাতকের বুলেটে সপরিবারে তিনি নিহত হন। বাংলাদেশের মানুষের স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হয়ে যায় এই রাতে।

জীবনের পুরোটা সময় দেশ ও জাতির কল্যাণে লড়ে গেছেন বঙ্গবন্ধু। আজও বঙ্গবন্ধু রয়েছেন কোটি হৃদয়ে। তিনি থাকবেন অমর হয়ে মানুষের মনের মনি কোঠায়।

- Advertisement -

সাথে থাকুন

16,985FansLike
2,458FollowersFollow
61,453SubscribersSubscribe

অন্যান্য খবর

নিজ মাদরাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী

আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদরাসার ছাত্র ছিলেন একসময়। সেই মাদরাসাতেই একটানা ৩৪ বছর মুহতামিম হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আজ সেই...

গোপালগঞ্জে বাসের নিচে ঢুকে গেল মোটরসাইকেল, নিহত ৩

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে বাস ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩জন নিহত হয়েছেন।গতকাল (১৮ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে মুকসুদপুর কলেজ মোড় সংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।মুকসুদপুর...

হাটহাজারী মাদরাসায় আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মরদেহ

হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মরদেহ হাটহাজারী মাদরাসায় এসে পৌঁছেছে।দীর্ঘ ৩৪ বছর ধরে এই মাদরাসার মহাপরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন তিনি।আজ (১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল...

আল্লামা শফীর জানাজা আজ, দাফন মাদরাসাতেই

হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর নামাজে জানাজা আজ শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) জোহরের নামাজের পর দুপুর ২টায় হাটহাজারী মাদরাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।জানাজায় ইমামতি...

এমপি পঙ্কজ নাথ করোনায় ভাইরাসে আক্রান্ত

বরিশাল-২ (হিজলা-মেহেন্দিগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য পঙ্কজ নাথ প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।গতকাল (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে তার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। তিনি নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।সংসদ...
- Advertisement -

আইনি লড়াইয়ে জিতলেন লিওনেল মেসি

৯ বছরের আইনি লড়াইয়ের পর অবশেষে জয়ের মুখ দেখলেন লিওনেল মেসি। ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) শীর্ষ আদালত রায় দিয়েছে, নিজের নামকে এখন থেকে ‘ট্রেডমার্ক’ হিসেবে...

২ ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হলেন নেইমার

যদিও শোনা যাচ্ছিল ৭ ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারেন ফ্রেঞ্চ ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার। নিষিদ্ধ ঠিকই হয়েছেন, তবে ২ ম্যাচের জন্য।...

জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার এ এস এম ফারুক আর নেই

বিসিবির প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা মেজর (অব.) হোসেন ইমাম আর নেই। (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাহি রাজিউন)।তিনি ছিলেন এ এস এম ফারুকের ভগ্নিপতি। ছোট বোনের জামাতার হঠাৎ...

সর্বশেষ খবর

নারকেল গাছে উঠে ভাষণ দিলেন শ্রীলঙ্কার মন্ত্রী

নারকেল গাছে উঠে ভাষণ দিলেন শ্রীলঙ্কার এক মন্ত্রী। লোকজনকে নারকেল সংকট বোঝাতে নারকেল গাছে উঠে ভাষণ দিয়েছেন অরুন্দিকা ফার্নান্দো।মন্ত্রী জানিয়েছেন, দেশজুড়ে নারকেলের তীব্র সংকট...

সর্বোচ্চ মানুষ দেখবে এবারের আইপিএল

আজ (শনিবার) রাত ৮টায় মুম্বাই ইন্ডিয়ানস ও চেন্নাই সুপার কিংসের ম্যাচের মধ্য দিয়ে শুরু হবে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ।করোনার কারণে এবারের ১৩তম আসরে নেই দর্শক,...

বড় বোনকে প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলায় ছোট বোনকে খুন

রংপুরের গণেশপুর এলাকা থেকে ২ বোনের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় হত্যা মামলা করা হয়েছে।আজ সকালে (১৯ সেপ্টেম্বর) রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানায় নিহত জান্নাতুল মাওয়ার...

টানা ৪দিন পর ভোমরা বন্দর দিয়ে এলো ভারতীয় পেঁয়াজ

টানা ৪দিন বন্ধ থাকার পর ভোমরা বন্দর দিয়ে ভারত থেকে আমদানি শুরু হয়েছে পেঁয়াজ।আজ (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সাড়ে ১২টা থেকে এ আমদানি কার্যক্রম শুরু...

সাভারে ১৫ যাত্রী নিয়ে বাস খাদে

সাভারে একটি যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে গেছে। এতে বাসে থাকা অন্তত ১৫ জন যাত্রী আহত হয়েছেন।আজ(১৮ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের...
- Advertisement -
izmir escort
istanbul escort ilanlari istanbul escort istanbul escort bayanlarla sevgili tadinda etkilesimler. istanbul escort bayanlar istanbul escort istanbul escort hizmeti icin ideal web sitesi.